রহমত, বরকত ও মাগফিরাতের মাস রমজান

প্রকাশিত: শুক্রবার, মে ১০, ২০১৯ । সময়:- ১২:৩২ । খবর: বিশেষ সংবাদ/মতামত/শিরোনাম

হোছাইন আহমাদ আযমী : এই মাস রহমতের মাস, বরকতের মাস, মাগফিরাতের মাস। এ প্রসঙ্গে প্রিয় নবী স. ইরশাদ করেনঃ পবিত্র মাহে রমযান এমন মাস, যার প্রথম অংশ আল্লাহর রহমতে পরিপূর্ণ। দ্বিতীয় অংশে রয়েছে আল্লাহ তায়ালার পক্ষ থেকে ক্ষমা আর তৃতীয় অংশে রয়েছে জাহান্নাম থেকে মুক্তি লাভের সুযোগ।

এই মুহুর্তে আমরা রমযানের প্রথম দশক অর্থাৎ রহমতের অংশ অতিবাহীত করছি। রহমত আরবী শব্দ এর অর্থ দয়া, করুনা, শান্তি ও কল্যাণ। পারিভাষিক ভাবে আল্লাহ তায়ালার পক্ষ থেকে বান্দার প্রতি অবতীর্ণ হওয়া শান্তি ও কল্যাণ অর্থে ব্যবহৃত হয়। এই শান্তি ও কল্যাণ সর্বাধিক অবতীর্ণ হয় পবিত্র মাহে রমযানে। যা অন্য মাসে সে পরিমাণ অবতীর্ণ হয়না।

এই প্রসঙ্গে সহীহ বোখারী ও মুসলিম শরীফে প্রিয় নবী স. এর একটি হাদীস উল্লেখ রয়েছেঃ বিশিষ্ঠ সাহাবী হযরত আবু হুরায়রা রা. বর্ণনা করেন, রাসুল স. ইরশাদ করেছেন, যখন পবিত্র রমযান মাস শুরু হয় তখন থেকে আসমানের দরজা সমূহ খুলে দেয়া হয়। ভিন্ন বর্ণনায় জান্নাতের দরজা সমূহ খুলে দেয়া হয় ও জাহান্নামের দরজা সমূহ বন্ধ করে দেয়া হয় এবং শয়তানদেরকে শিকল দ্বারা বন্দি করে রাখা হয়। অপর বর্ণনায় এসেছে রহমতের দরজা সমূহ খুলে দেয়া হয়।

আল্লাহ রাব্বুল আলামীন ইরশাদ করেনঃ নিশ্চয় মহান আল্লাহ তায়ালার রহমত ও করুনা, নেককার ও সৎ কর্মশীল বান্দাদের অতি নিকটে। (সুরা আরাফ-৫৬)

অর্থাৎ যারা যত বেশি নেক কাজ করবে তারা তত বেশি রহমত লাভ করবে। নেককার বান্দাদের সান্যিদ্ধ লাভের মাধ্যমে সওয়াব অর্জনের পরিবেশ সৃষ্টি হবে। নিজের মধ্যে নেককাজ করার প্রবণতা বেশি অনুভব হবে। নেককার, বুযুর্গ, অলিআল্লাহগণের সঙ্গ লাভে ধন্য হওয়ার এখনই মুক্ষম সময়।

বিজ্ঞানের দৃষ্টিতে রোযা-৪
সিকান্দার আযম ও আরাসতু একাধারে উপবাস থাকাকে সাস্থ্য রক্ষার জন্য খুবই জরুরী বলে অভিহিত করেছেন। বাদশা সিকান্দার বলেন, আমার পুরা জীবনটা অতিবাহিত হয়েছে অভিজ্ঞতা ও ঘটনা প্রবাহের মধ্য দিয়ে। নিজের অভিজ্ঞতার আলোকে বলছি, যে ব্যক্তি সকাল আর সন্ধ্যায় আহার করবে, রোগমুক্ত সাস্থ্যকর জীবন যাপন করতে পারবে। আমি হিন্দুস্থানে কোন কোন এলাকাতে এমন তীব্র গরম প্রত্যক্ষ করেছি, যেখানে সবুজ তরুলতা পর্যন্ত জ¦লে গিয়েছে। অথচ আমি সেই উষ্ণ এলাকাতেও সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত পানাহার না করেই কাটিয়ে দিয়েছি। কিন্তু তখনও আমি অনুভব করেছি নিজের মধ্যে এক প্রকার সজীবতা ও শক্তি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 + 18 =

SinglePostBottom