ইতিহাসেরই পুনরাবৃত্তি ঘটাচ্ছে ভারত!

প্রকাশিত: বুধবার, জুলাই ১০, ২০১৯ । সময়:- ৭:৩৪ । খবর: খেলা/শিরোনাম

নিউজ ডেস্ক : চলতি বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হয় ভারত। বিশ্লেষকদের চোখে ফাইনালে ওঠার এ লড়াইয়ে ফেভারিট ছিল ভারতই। কিন্তু ইতিহাস চোখরাঙানি দিচ্ছিলো কোহলির দলকে। কেননা বিশ্বকাপে সাতবারের মোকাবেলায় চারবারই জিতেছে কিউইরা। আর ইংল্যান্ডের মাটিতে তিনবার মোকাবেলায় তিনবারই হেরেছে ভারত।

সেই ধারাবাহিকতায় হারের শঙ্কায় রয়েছে আজও। কিউইদের দেয়া ২৪০ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ইতিমধ্যে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৩০ রান তুলেছে ভারত। আরও একবার পরাজয়ের দ্বারপ্রান্তে দলটি। এ যেন ইতিহাসেরই পুনরাবৃত্তি!

লড়াইটা যেহেতু মাঠের, সেহেতু কিউইদের নিয়ে কোহলিদের ভাবনার অনেক কিছুই ছিল। একে তো নতুন ম্যাচ, তার ওপর প্রতিপক্ষ দলটি বরাবরই বিশ্বকাপের ‘ডার্ক হর্স’। গ্রুপ পর্বে মুখোমুখি হলে তবু একটা ধারণা থাকত বিরাট কোহলিদের। কিন্তু বৃষ্টি হানা দেয়ায় ভারত-নিউজিল্যান্ড ম্যাচটি মাঠেই গড়ায়নি। এতে এ বিশ্বকাপে ভারতকে প্রথমবারের মতো নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হতে হয় সেমিফাইনাল ম্যাচে।

সঙ্গে ছিল বৃষ্টির শঙ্কা। সেই শঙ্কা বাস্তবে মঞ্চায়িত হয়েছেও। তার ওপর দুইদিন মিলিয়ে খেলার পুরো সময়টাতেই আকাশ ছিলো মেঘলা। তার মানে কিউই পেসারদের পোয়াবারো। ভারতের ফাইনালে ওঠা তাই মোটেও সহজ হওয়ার কথা নয়। হয়েছেও তাই। কিউই পেসারদের সামলাতে রীতিমত ব্যর্থ হয়েছে ভারতের শক্তিশালী ব্যাটিং লাইন। ইতিমধ্যে ৫ রানে ৩ উইকেট, ২৪ রানে ৪, ৭১ রানে ৫ এবং ৯২ রানে ষষ্ঠ উইকেট পতন সে কথাই বলছে।

এ ম্যাচের আগে পরিসংখ্যানও ছিলো ভারতের বিপক্ষেই। বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তেমন একটা সুখকর পারফরম্যান্স নেই ভারতের। বিশ্বকাপে এ পর্যন্ত সাতবার নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হয়ে চারবারই হেরেছে ভারত। আর ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে কিউইদের বিপক্ষে পারফরম্যান্স দেখলে আজকের ম্যাচে ভারত নয়, নিউজিল্যান্ডই ফেবারিট ছিলো! ইংল্যান্ডের মাটিতে বিশ্বকাপে তিনবার নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হয়ে একবারও যে জয়ের মুখ দেখেনি ভারত!

ম্যানচেস্টারে আজ সেই ১৯৭৫ বিশ্বকাপের স্মৃতিই যেন ফিরিয়ে আনলো উইলিয়ামসনের দোল। সেবার এ মাঠেই গ্রুপ পর্বের ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের কাছে ৪ উইকেটে হেরেছিল ভারত। পরের বিশ্বকাপে (১৯৭৯) লিডসে ৮ উইকেটে হারে উপমহাদেশের দলটি। সবশেষ হার ১৯৯৯ বিশ্বকাপে, ৫ উইকেটে। এ তিন ম্যাচেই আগে ব্যাট করে একবার আড়াই শর নিচে, একবার দুই শর নিচে এবং আরেকবার ২৫১ রান তুলতে পেরেছে ভারত।

আর এ তিন ম্যাচে ভারতের হারানো মোট ২৬ উইকেটের মধ্যে ২৩ উইকেটই নিয়েছেন কিউই পেসাররা। অর্থাৎ ইংল্যান্ডের মাটিতে বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের পেসাররা বরাবরই ভালো। ট্রেন্ট বোল্ট, ম্যাট হেনরি, লকি ফার্গুসনদের চোখ যে চকচক করে ওঠার কথা। তা আজ আবারো প্রমাণিত হলো। ম্যানচেস্টারে সেই ইতিহাসেরই পুনরাবৃত্তি ঘটালো নিউজিল্যান্ড।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five − two =

SinglePostBottom